নবদম্পতিকে মোবারকবাদ কিভাবে জানাবেন

নবদম্পতিকে মোবারকবাদ কিভাবে জানাবেন


নবদম্পতিকে মোবারকবাদ কিভাবে জানাবেন

بسم الله الرحمن الرحيم
نحمده وصلي على رسوله الكريم

🖋️প্রিয় মুসলিম সমাজ! শুধু আমাদের দেশে নয় বরং বিশ্বের প্রায় সব দেশ, সব জাতি ও সব সম্প্রদায়ের মধ্যে এটি প্রচলিত আছে যে, যখন কোন দুই জন ছেলে মেয়ে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয় তখন অন্যান্য ব্যাক্তিরা তাদেরকে মোবারকবাদ জানায়। মোবারকবাদ জানানোর ভাষা ও পদ্ধতি বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন রকম লক্ষ্য করা যায়।
কেউ বলে শাদী মোবারক ! তো কেও বলে, তোমরা সুখী হও! বা তোমরা সুখে থাকো! আবার কেউ বলে Happy marriage life! তো কেউ God bless you both! ইত্যাদি ইত্যাদি। যদিও উপরোক্ত পদ্ধতিতে মোবারকবাদ জানানো নাজায়েজ ও হারাম নয়। কিন্তু যেহেতু আমরা মুসলিম ও সমস্ত কাজে নবী কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহিস সালামের আনুগত্য ও সুন্নতের অনুসরণ করা কেই প্রাধান্য দিতে ভালোবাসি। তাই আজকে আমি আপনাদের সম্মুখে সেই দোয়া ও বাক্য গুলো তুলে ধরব যা নবী কারীম সাল্লাল্লাহু সাল্লাম কোন নব-দম্পতি কে মোবারক বাদ জানানোর সময় ব্যবহার করতেন।

عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ أَنَّ النَّبِيَّ صلى الله عليه وسلم كَانَ إِذَا رَفَّأَ قَالَ بَارَكَ اللهُ لَكُمْ وَبَارَكَ عَلَيْكُمْ وَجَمَعَ بَيْنَكُمَا فِي خَيْرٍ
অর্থাৎ! হযরত আবূ হুরাইরাহ রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত। রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বিবাহ উপলক্ষে কাউকে মুবারকবাদ জানিয়ে বলতেনঃ
«بَارَكَ اللهُ لَكُمْ وَبَارَكَ عَلَيْكُمْ وَجَمَعَ بَيْنَكُمَا فِي خَيْرٍ»
‘‘আল্লাহ্ তোমাদের বরকত দান করুন, তোমাদের উপর বরকত নাযিল করুন এবং কল্যাণের সাথে তোমাদের একত্র করুন।’’
{{ সুনানে ইবনে মাজাহ হাদিস নং-

عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ، أَنَّ النَّبِيَّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ كَانَ إِذَا رَفَّأَ الْإِنْسَانَ إِذَا تَزَوَّجَ، قَالَ: بَارَكَ اللَّهُ لَكَ، وَبَارَكَ عَلَيْكَ، وَجَمَعَ بَيْنَكُمَا فِي خَيْرٍ
অর্থাৎ! আবূ হুরাইরাহ রাদিয়াল্লাহু আনহু সূত্রে বর্ণিত। নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কাউকে বিয়ের পর শুভেচ্ছা জানালে বলতেনঃ
“بَارَكَ اللَّهُ لَكَ، وَبَارَكَ عَلَيْكَ، وَجَمَعَ بَيْنَكُمَا فِي خَيْرٍ”
‘আল্লাহ তোমার কল্যাণ করুন, তোমাকে বরকত দান করুন এবং তোমাদের দাম্পত্য জীবন কল্যাণময় হোক।
{{ সুনানে আবু দাউদ হাদিস নং-

عَنْ عَقِيلِ بْنِ أَبِي طَالِبٍ أَنَّهُ تَزَوَّجَ امْرَأَةً مِنْ بَنِي جُشَمَ فَقَالُوا بِالرَّفَاءِ وَالْبَنِينَ فَقَالَ لَا تَقُولُوا هَكَذَا وَلَكِنْ قُولُوا كَمَا قَالَ رَسُولُ اللهِ صلى الله عليه وسلم اللّٰهُمَّ بَارِكْ لَهُمْ وَبَارِكْ عَلَيْهِمْ
অর্থাৎ! হযরত আকীল ইবনু আবূ ত্বালিব রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত। তিনি বনু জুশম গোত্রের এক মহিলাকে বিবাহ করলে লোকেরা (মুবারকবাদ দিয়ে) বললো, সুখী হও এবং অধিক সন্তান হোক। তিনি বলেন, তোমরা এরূপ বলো না, বরং যেরূপ রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন তদ্রূপ বলোঃ
“اللّٰهُمَّ بَارِكْ لَهُمْ وَبَارِكْ عَلَيْهِمْ”
‘‘হে আল্লাহ্! তাদেরকে বরকত দান করুন এবং তাদের উপর বরকত নাযিল করুন।’’

{{ সুনানে ইবনে মাজাহ হাদিস }}

حَدَّثَنَا سُلَيْمَانُ بْنُ حَرْبٍ حَدَّثَنَا حَمَّادٌ- هُوَ ابْنُ زَيْدٍ- عَنْ ثَابِتٍ عَنْ أَنَسٍ رَضِيَ اللَّهُ عَنْهُ أَنَّ النَّبِيَّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ رَأَى عَلَى عَبْدِ الرَّحْمَنِ بْنِ عَوْفٍ أَثَرَ صُفْرَةٍ قَالَ: ((مَا هَذَا)).
قَالَ: إِنِّي تَزَوَّجْتُ امْرَأَةً عَلَى وَزْنِ نَوَاةٍ مِنْ ذَهَبٍ. قَالَ: ((بَارَكَ اللَّهُ لَكَ، أَوْلِمْ وَلَوْ بِشَاةٍ)).
অর্থাৎ! আনাস রাদিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত যে, নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ‘আবদুর রহমান ইব্নু ‘আওফ রাদিয়াল্লাহু আনহু-এর দেহে সুফ্রার (হলুদ রং) চিহ্ন দেখতে পেয়ে বললেন, এ কী? ‘আবদুর রহমান রাদিয়াল্লাহু আনহু বললেন, আমি এক মহিলাকে একটি খেজুরের অাঁটি পরিমাণ স্বর্ণের বিনিময়ে বিয়ে করেছি। নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন-। “بَارَكَ اللَّهُ لَكَ” আল্লাহ্ তা‘আলা তোমার এ বিয়েতে বারাকাত দান করুন। তুমি একটি ছাগলের দ্বারা হলেও ওয়ালীমার ব্যবস্থা কর।

{{ সহীহ বুখারী হাদিস নং-5155 }}

সম্মানিত পাঠক বৃন্দ! উপরোক্ত হাদিসের আলোকে নবদম্পতিকে মোবারকবাদ জানানোর জন্য নবী করীম সাল্লাহু সাল্লাম এর কয়েকটি দোয়া পাওয়া যায় যথা-

১-«بَارَكَ اللهُ لَكُمْ وَبَارَكَ عَلَيْكُمْ وَجَمَعَ بَيْنَكُمَا فِي خَيْرٍ»
অর্থাৎ!!‘‘আল্লাহ্ তোমাদের বরকত দান করুন, তোমাদের উপর বরকত নাযিল করুন এবং কল্যাণের সাথে তোমাদের একত্র করুন।’’

২,, “بَارَكَ اللَّهُ لَكَ، وَبَارَكَ عَلَيْكَ، وَجَمَعَ بَيْنَكُمَا فِي خَيْرٍ”
‘আল্লাহ তোমার কল্যাণ করুন, তোমাকে বরকত দান করুন এবং তোমাদের দাম্পত্য জীবন কল্যাণময় হোক।

৩,,- “اللّٰهُمَّ بَارِكْ لَهُمْ وَبَارِكْ عَلَيْهِمْ”
অর্থাৎ!! ‘‘হে আল্লাহ্! তাদেরকে বরকত দান করুন এবং তাদের উপর বরকত নাযিল করুন।’’

৪- “بَارَكَ اللَّهُ لَكَ”
অর্থাৎ!! আল্লাহ্ তা‘আলা তোমার এ বিয়েতে বারাকাত দান করুন।

প্রিয় পাঠকবৃন্দ! আমাদের উচিত সমাজে প্রচলিত নবদম্পতিকে মোবারকবাদ জানানোর যে পদ্ধতি ও বাক্যগুলো ব্যবহৃত হয় তা বর্জন করে নবী কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের ব্যবহৃত বাক্য ও দোয়া গুলো ব্যবহার করা যাহাতে এর মাধ্যমে নবী কারীম সাল্লাহু সাল্লাম এর একটি সুন্নতের উপর আমল হয়ে যায় এবং আখেরাতে এর কারণে পুরস্কৃত হয়।

✍️ মুফতী আমজাদ হুসাইন সিমনানী ✍️
🌎 কুশমন্ডি, দক্ষিণ দিনাজপুর, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত🌎

Leave a Reply

This Post Has 2 Comments

  1. Amjad Hussain

    আমরা মুসলিম সেই অনুপাতে আমাদেরকে প্রচলিত বিবাহে মোবারকবাদ দেওয়ার পদ্ধতি বর্জন করে অবশ্যই প্রয়োজন এবং সুন্নতকে গ্রহণ করে নেকি উপার্জন করা দরকার আল্লাহ তায়ালা আপনাদের মঙ্গল করুন।